বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ০৮:৫৫ পূর্বাহ্ন

ফিরে এসো- মুহা. মোতালেব হোসেন

ধরলা টাইমস
  • প্রকাশের সময় : রবিবার, ১২ জুলাই, ২০২০
  • ৪০ বার দেখা হয়েছে

ফিরে এসো

মুহা. মোতালেব হোসেন
কলঙ্কহীন পূর্ণ চাঁদের মত দীপ্তিময় মুখশ্রী
অমাবস্যা রাতের মত ঘন কালো আর
পাখির পালকের মতো অপূর্ব রেশমি কুন্তল
গোলাপি ঠোঁটে মায়া ভরা হাসি
স্বপ্ন লাজুক চোখে সুদূরতা  অভিলাষ অপার
অষ্টাদশীর আষাঢ়ে ভরা নদীর জোয়ার
যে কোন যুবক দেখলে যৌবনের টানে
 নিজেকে জড়াতে ভুল করবেনা প্রনয়ের সাগরে
আমিও সেই অনুভূতির কোনো অংশে কম নই
সেই অনুভূতির মন্ত্রে উজ্জীবিত হয়ে
জীবন যৌবনের মাধুর্যে ভালো লাগলো পরীকে
সে আমার সহপাঠী
তাই দ্বিধা আর শঙ্কায় ভরে যায় মন
আমার হৃদয় আকাশের নীল ঘুড়ি নবান্ন উৎসব
ফুটন্ত গোলাপের কথা জানালে সে যদি আমার না হয়
অবশেষে হারাই যদি তাঁর আজীবনের বন্ধুত্ব
 তাই সাহস করে বলতে আমার ভালো লাগা না লাগার সীমাহীন কথামালা
তখন সেও বলেনি,
হয়তো লজ্জায় অথবা আমাকে হারানোর ভয়ে
 তবে নিয়মিত চোখাচোখি তে চলে গেল আরও কিছু সময় আরো কিছুদিন কিছু পথ।
তারপর; সোনালী এক বিকেলে
 হঠাৎ মোবাইলের তারবিহীন তরঙ্গে
ওপার হতে ভেসে এল চেনা কণ্ঠস্বর
আমার স্নায়ু, শিরায় কম্পিত মায়াবী হরিণের ছোটাছুটি
কলাপীর উম্মাতাল নাচন অমিশ্রিত বুকের পাঁজরে
যেন এরকম মুহূর্তের জন্য অপেক্ষায় আছি
 কত দিন, কত মাস, কত বছর, কতটি যুগ
 তারপর মনের গহীনে চেপে থাকা ইচ্ছাগুলো
বাসন্তী পুষ্পের মত সুভাষ ছড়ালো
তাই ভালোবাসি ভালোবাসি বলে হাত বাড়িয়ে দিলাম
তুমিও সমর্পিত হলে অনেক প্রতীক্ষা শেষে।
আমাদের ভালোবাসা স্বপ্নের উঠোনে ঊড়লো
পানকৌড়ি, বালিহাঁস, খঞ্জনা, শালিক, শ্যামা
 ভালোবাসার স্বর্গ বাগানে ফুটলো পারিজাত, হাসনাহেনা, কামিনী,
কদম আরো ফুটল জানা-অজানা শতফুল
তারপর নদীর তীরে কাশবন বালুচর
 পড়ন্ত সোনালী বিকেল পেরিয়ে
ভালোবাসার সাগর মোহনায় ছাড়িয়ে
অপূর্ব চাঁদনী রাতে আরো একান্তভাবে।
 সম্পর্কের গভীরে লুকানো সম্পর্কটুকুও সহসা
 বেরিয়ে এলো নতুন উদ্দীপনায়
 মুগ্ধতা পাগলামি আরে ঘনিষ্ঠতার সংমিশ্রনের
রচিত হলো জীবনের স্বপ্ন
প্রেম ভালোবাসার নতুন উপাখ্যান।
তারপর হঠাৎ ভালোবাসার ফুলবাগানের জ্বলে উঠল দাবানল
মেঘ না চাইতে এলো শিলাবৃষ্টি
বসন্তের ফুল পাতা ঝরে গেল মনের পাজর থেকে
যাহার ছিলো সীমাহীন স্বপ্ন,
ক্লান্তিহীন যাহার বসুন্ধরা,
অফুরন্ত যাহার প্রাণ,
  অটল যাহার সাধনা,
মৃত্যু যাহার মুঠোতলে
তার অসীম ভালোবাসায় মরীচিকা ফেলে দিলে
তোমাকে একটু দেখার আশায় তোমার পথের পাশে দাঁড়িয়ে থেকেছি
দেখাও করেছি কত অজুহাতে
 তা জানতে
এটাও ঠিক বুঝতে
তোমাকে কতটা পছন্দ আমার।
আজকাল কিছুই ভালো লাগেনা
ভাল লাগেনা বসন্তের লাল গোলাপের পাপড়ি
গ্রীষ্মের খাঁ খাঁ দুপুরে একটু ছায়া।
ইদানিং আমার মনে প্রচন্ড খরতাপ
 কখনো মেঘাচ্ছন্ন আকাশ
 বর্ষার উম্মাতাল প্রকৃতির মতোই উদাসীনতায় কেটে যায় আমার দিন রাত
পরী;  আমি কি আবারও স্বপ্ন দেখবো স্বপ্নহীন চোখে
নাকি চাতক পাখির মতো উড়বো মরীচিকায় পরী,
 আমার ভালবাসার প্রতি আমি বিশ্বাসী যতটা আস্থা আমার হৃদয় অস্তিত্বে
কিন্তু কাঙ্ক্ষিত মন তোমার আশ্বাস চায়
চায় তোমার সান্ত্বনা
খোঁজে তোমার ভালোবাসা।
তুমি পাশে থাকলে আমি সাহসী হয়ে উঠি
মহামারী দুর্যোগ থেকে বাঁচাতে পারি হাজারো জীবন
শুধু তুমি পাশে থাকলে আমি জয়ী হবো
জয়ী হবে আমাদের ভালবাসা
পরী; তোমাকে সত্যি ভালোবাসি
ভীষণ ভালোবাসি
 সব অভিমান ভুলে ফিরে এসো প্রিয়তমা
  এসো আমার ভালোবাসার ঘরে।।
আপনার মতামত লিখুন :

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন:

এ বিভাগের আরো পোস্ট
© All rights reserved © 2019 Dhorla Time
Design & Developed by Freelancer Zone
themesba-lates1749691102