শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ০৮:১৭ পূর্বাহ্ন

প্রকৃতির সৌন্দর্যে ফুটে উঠেছে সাতলা বিলের লাল শাপলা

ধরলা টাইমস
  • প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার, ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ৮৫ বার দেখা হয়েছে

স্বপ্ন আমার আকাশ ছোয়ার উড়তে ডানা মেলে,
তোমায় নিয়ে হারিয়ে যাবো লাল শাপলার সেই বিলে।
আনবো তুলে হাত বারিয়ে মুঠোয় মুঠোয় শালুক,
দেখবো তোমার মুখটি আমি না ফিরিয়ে পলক।
আন মনেতে দেখবে যখন সাতলা বিলের ঢেউ,
মুখটি তোমার হয় যে মধুর দেখে প্রেমে পড়বে যে কেও।
পড়িয়ে দেবো তোমার গলে শাপলা ফুলের মালা,
তোমায় পেয়ে শাপলা বিলে করছে নতুন খেলা।
হিমেল পরশ ঠান্ডা বায়ু সিগ্ধ ভোরের আলো,
কাছে কিংবা দূরে থাকো প্রিয় তোমায়ই বাসি ভালো।

উজিরপুরের শাপলার রাজ্য সাতলা বিলে লাল শাপলায় ফুলে ফুলে ফুটে উঠেছে বিল অঞ্চল।
প্রাকৃতি যেনো নিজ সাজে ডানা মেলে সাজিয়েছে, কানায় কানায় সৌন্দর্যে পরিপূর্ণ । অপরুপ বিধাতার গড়া সৌন্দর্যের লিলাখেলা। মনের অজান্তে হারিয়ে যাই প্রাকৃতির প্রেমে।

বরিশাল সদর থেকে প্রায় ৬০ কিলোমিটার দূরে উজিরপুরে’র সাতলা গ্রাম এখন শাপলার রাজ্য নামেই পরিচিত। বর্ষার প্রথম থেকেই সাতলা গ্রামে বিলের পানিতে শাপলা ফুল ফোটা শুরু করে আর শিতের শুরুতেই শাপলা শেষ হতে থাকে । হাজার হাজার হেক্টর জমিতে এই শাপলা ফুল ফোটে। বিলের পানি কমতে থাকলেই কৃষক’রা জমি পরিষ্কার করেই ধান ফলাতে কাজ শুরু করেন।

ভোররে কোমল হাওয়া আর পাখির কিচিমিচি ডাক সূর্যের ঝিলিমিলি রোদের সাথেই শাপলা ফুল ফুটে উঠে। আহ্ কি আপরুপে সেঝে উঠে প্রাকৃতির সৌন্দর্যের রুপ। মনোরম পরিবেশে কোমল হাওয়া,পাখির কিচিমিচি গান আর রোদেলা সকালে ফুলের সুরবে মিশ্রিত সাতলার বিল। আবার সূর্যের তাপ আর বেলা গড়ানোর সাথে সাথেই ফুল বুঝতে শুরু করে।

প্রাকৃতি প্রেমিরা অপরুপ প্রাকৃতির দৃর্শ দেখার জন্যই ভোরের সাথে সাথেই দেশের ভিবিন্ন প্রান্ত থেকে ছুটে আসে হাজার হাজার পর্যটক। দেখা যায় ফটোগ্রাফিদে ভিড়। গড়ে উঠেছে বিলের মাঝেমাঝে ছোট ছোট পার্ক। দর্শনার্থীদের ঘুরে দেখানোর জন্য রয়েছে স্থানিয়দের সাজানো নৌর্কা। নৌকায় পর্যটকদের নিয়ে যাওয়া হয় বিলের মধ্যে শাপলার সমারহে। আবার নৌর্কা থেকে স্থানিয়দের অনেকেরই চলে জিবিকা।

দর্শনীয় যায়গা হলেও পর্যটকদের নেই কোনো থাকার যায়গা, নেই কোনো ভালো হোটেল, নেই কোনো ওয়াস রুমের ব্যবস্থা। এ বিষয় বরিশাল জেলা প্রশাসন বলেন এর মধ্যেই আমরা নানা উদ্যোগ নিয়েছি। আমরা পর্যাটক কর্পোরেশন সাথে কথা বলেছি তারা পরিকল্পনা দাখিল করেছে এর মধ্যেই সাড়া পাওয়া গেছে। -পটুয়াখালীর কন্ঠ

আপনার মতামত লিখুন :

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন:

এ বিভাগের আরো পোস্ট
© All rights reserved © 2019 Dhorla Time
Design & Developed by Freelancer Zone
themesba-lates1749691102