শুক্রবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২০, ০৭:৪৫ পূর্বাহ্ন

করেনায় জনসমাগম করে প্রফিট ফাউন্ডেশনের মানববন্ধন, চলছে সমালোচনা

ধরলা টাইমস
  • প্রকাশের সময় : মঙ্গলবার, ৯ জুন, ২০২০
  • ২ বার দেখা হয়েছে

নূর আলমগীর অনু, লালমনিরহাট: করোনাকালে নিয়মনীতির তোয়াক্কা না করে দীর্ঘক্ষণ ইউথ সদস্যদের রোদে দাঁড় করিয়ে জনসমাগম করে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে প্রফিট ফাউন্ডেশন নামক একটি সংস্থা। এ ঘটনায় এলাকা জুড়ে চলছে আলোচনা-সমালোচনা।

মঙ্গলবার (৯জুন) সকাল সাড়ে ১০ থেকে ১২টা পর্যন্ত লালমনিরহাট-বুড়িমারী মহাসড়কের তুষভান্ডার বাজারে প্রফিট ফাউন্ডেশনের ব্যনারে ৮০ জন সদস্য এ মানববন্ধন কর্মসূচিতে অংশ নেয়। এতে ১০টি দাবী জানিয়ে তারা মানবন্ধন কর্মসূচি পালন করে। এ সময় ইউথ সদস্যরা জনসমাগম করে অনেকেই রোদে থাকায় অসুস্থতা বোধ করেন।

জানাগেছে, ২০২০/২১ অর্থবছরে বাংলাদেশের জাতীয় বাজেটে যুব গোষ্ঠির উন্নয়নের লক্ষে বিশেষ দাবী জনিয়ে মানববন্ধনের আয়োজন করে লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ উপজেলার প্রফিট ফাউন্ডেশন নামে একটি সংস্থা। মঙ্গলবার সকালে উপজেলার তুষভান্ডার বাজারের অগ্রণী ব্যাংকের সামনে প্রখর রোদের মধ্যে সবাই এসে দাঁড় হয়। একে একে ইউথ সদস্যদের দাঁড় করিয়ে দেন প্রফিট ফাউন্ডেশনের পরিচালক নুরজ্জামান আহমেদ। পরে জনসমাগম করে মানববন্ধন কর্মসূচি শুরু হলে সেখানে এক ইউথ সদস্য রোদের কারণে ছাঁয়াতে গিয়ে দাঁড়ালে আবার তাকে জোর পূর্বক প্রখর রোদের মধ্যে তাকে দাড় করিয়ে দেয়। এক পর্যয়ে ওই নারী মাথায় একটি পেপার রেখে আবার মানববন্ধনে অংশ গ্রহন করেন। কিছূক্ষণ পরে ওই সদস্য অসুস্থবোধ করলে এক ব্যবসায়ী তাকে পানি এনে খাওয়ান।

এসময় কয়েকজন ইউথ সদস্যরা বলেন, করোন ভাইরাসের কারণে সরকার নির্দেশনা দিয়েছেন বাড়িতে থাকার । কিন্তু মানবন্ধনের জন্য আমাদের বাজারে আসতে হয়েছে। মানবন্ধনে অংশগ্রহন করে প্রখর রোদের মধ্যে পড়েছি। যার কারণে আমাদের খুব কষ্ট হয়েছে। কিন্তু আমাদের কোন উপায় নেই । চাকুরী কারণে আমারা সবাই বেকার হয়ে আছি। তাই কারোনাকালে প্রফিট ফাউন্ডেশন পরিচালকের ডাকে এই মানববন্ধনে অংশ গ্রহন করা হয়। প্রখর রোদের মধ্যে মানববন্ধন কর্মসূচিতে অংশ গ্রহন করে খারাপ লেগেছে।

এদিকে কারোনাকালে প্রফিট ফাউন্ডেশন এমন কান্ডহীন উদ্যোগে জেলাজুড়ে চলছে সমালোচনা ।

প্রফিট ফাউন্ডেশনের পরিচালক নুরজ্জামান আহমেদ বলেন, সারাদেশে যেভাবে মানববন্ধন করা হয়। সেভাবে মানববন্ধন করা হয়েছে। রোদে দাঁড় না করিয়ে কি গোপন স্থানে দাঁড় করে মানববন্ধন করা হবে বলে তিনি ফোন কেটে দেন।

এ বিষয় উপজেলা নির্বাহী অফিসার(ইএনও) রবিউল হাসান বলেন, করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে ছোট করে মানববন্ধন করতে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছিল। তারা রোদে দাঁড় করিয়ে এভাবে মানববন্ধন করা ঠিক করেনি। করোনাকালে এভাবে জনসমাগম করে মানববন্ধন করা উচিৎ হয় নি বলে জানান তিনি।

আপনার মতামত লিখুন :

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন:

এ বিভাগের আরো পোস্ট
© All rights reserved © 2019 Dhorla Time
Design & Developed by Freelancer Zone
themesba-lates1749691102