আপনার নিজের ভালো থাকার দায়িত্ব টুকু নিন আপনি নিজেই

প্রকাশিত: ১২:০৩ পূর্বাহ্ণ, জুন ১৯, ২০২০
ছবি: রনজিৎ কুমার রায়, সাংবাদিক ও ফিচার লেখক

নিজের সেবা করার জন্য অন্যর হাত নয় নিজের হাতটাকেই কাজে লাগাতে এবং শক্তিশালী করতে হয়। যতই কাছের লোক বা ভালো বন্ধু-বান্ধবী হোক কেউ আপনার হয়ে আপনার যন্ত্রনা উপলব্ধি করতে পারবেনা।

একটি বাস্তব কথা হলো এখন আপনি মারা যান, আপনার দেহটাকে শ্মশানে সদগতি করা হবে তারপর কাছের লোক বা ভালো বন্ধু-বান্ধবী হোক কেউ আপনার সাথে শ্মশানে থাকবেনা। এমনকি জন্মদাতা পিতা মাতাও থাকবেনা।

আপনি আপনার বন্ধু বান্ধবীদের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে না পারার কারনে যদি বন্ধুমহলে আপনাকে শুনতে হয় আপনি ক্ষ্যাত, গেয়ো, আনসোশাল! খুব ভালো, সুন্দর করে তাদের এড়িয়ে চলুন। কেননা বাংলায় একটি প্রবাদ আছে “দুষ্ট গরুর থেকে শুন্য গোয়াল অনেক ভালো”।

কে কি বললো আপনাকে, কে উপহাস করলো তা দিয়ে সমালোচনা চললেও জীবন চলেনা।
জীবনটা যেহেতু আপনার। হাসি, আনন্দ সবই আপনার। তাই সিদ্ধান্ত নিন নিজের জীবনের জন্য আপনি নিজে। অন্যর উপর নির্ভরশীল যখনি হবেন, তখন জীবনের মানে হারাবেন। আপনি আপনার জীবন কে যেইভাবে কল্পনা করতে পারবেন অন্য কেউ তা অনুভব করার ক্ষমতাও রাখেনা।

আরেক বাস্তব কথা হলো, আজ যেসব প্রিয় মানুষ বা বন্ধু-বান্ধবীদের সাথে তাল মিলিয়ে আপনি পথভ্রষ্ট হচ্ছেন বা পাপাচারে লিপ্ত হচ্ছেন। ১ঘন্টা পর সৃষ্টিকর্তা না করুক আপনার মৃত্যু হলে আপনার কলিজার বন্ধু-বান্ধবী কেউই সেই শ্মশানের সাথী হবেনা।

তাই জীবনের সিদ্ধান্ত হোক নিজ নিজ চিন্তাধারা থেকে, হোক তা ক্ষুদ্র সিদ্ধান্ত, তবু সিদ্ধান্তটা কিন্তু আপনার জীবনের।

লেখক: রনজিৎ কুমার রায়, সাংবাদিক ও ফিচার লেখক

আপনার মতামত লিখুন :

আমাদের ফেসবুক পেজ